মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:২৩ পূর্বাহ্ন

পুরস্কার পেলেন ‘নগদ’ এর নির্বাহী পরিচালক মো. সাফায়েত আলম

প্রতিনিধির / ৬ বার
আপডেট : শুক্রবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২
পুরস্কার পেলেন ‘নগদ’ এর নির্বাহী পরিচালক মো. সাফায়েত আলম
পুরস্কার পেলেন ‘নগদ’ এর নির্বাহী পরিচালক মো. সাফায়েত আলম

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক খাতে অনন্য নেতৃত্বগুণের জন্য আন্তর্জাতিক লিডারশিপ পুরস্কার পেয়েছেন ‘নগদ’ লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক মো. সাফায়েত আলম। যুক্তরাজ্যভিত্তিক আর্থিক জার্নাল ‘বিজনেস ট্যাবলয়েড’ কর্মক্ষেত্রে কৌশলগত, টেকসই ও দূরদর্শী পদক্ষেপের জন্য ‘ভিশনারি লিডার ইন ডিজিটাল ফাইন্যান্স’ হিসেবে পুরস্কৃত করেছে তাকে।

টেলিকমিউনিকেশন্স, তথ্যপ্রযুক্তি, ইলেকট্রনিক্স এবং ডিজিটাল ফাইন্যান্স (ডিএফএস) খাতে মো. সাফায়েত আলমের দীর্ঘ ২৬ বছরের বর্ণিল ক্যারিয়ার রয়েছে। বিশ্বের দ্রুততম বর্ধনশীল ডিজিটাল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’-এর একজন নির্বাহী পরিচালক হিসেবে তিনি এই প্রতিষ্ঠানের উত্থানে নিজের কৌশলগত পদ্ধতি দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। একজন নির্বাহী পরিচালক হিসেবে ‘নগদ’-এর বিভিন্ন মাইলফলক স্পর্শ করায় রয়েছে তার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। দেশের বাণিজ্য খাতে তার এসব অসামান্য অবদানকে স্বীকৃতি দিতেই তাকে ‘ভিশনারি লিডার ইন ডিজিটাল ফাইন্যান্স’ খেতাব দিয়েছে বিজনেস ট্যাবলয়েড।

২০১৯ সাল থেকে বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন খ্যাতনামা ব্যক্তিদের মেধা ও দক্ষতার ওপর ভিত্তি করে তাদের স্বীকৃতি দিয়ে আসছে বিজনেস ট্যাবলয়েড। প্রতি বছর এই প্রকাশনাটির পছন্দ করা লোকদের ভেতর থেকে মনোনীতদের মূল্যায়ন করে থাকে একটি স্বতন্ত্র কমিটি। উদ্ভাবন, স্বচ্ছতা, নেতৃত্ব এবং বিভিন্ন মানদণ্ড এই পুরস্কার প্রদানের ক্ষেত্রে বিবেচিত হয়।এই বছর পত্রিকাটি বিশ্বজুড়ে এমন ১০ জন লিডারকে সম্মাননা ও পুরস্কার দিয়েছে। যারা অর্থনীতিতে নিজেদের অসাধারণ কাজ দিয়ে বৈপ্লবিক কোনো পরিবর্তন এনেছেন। বাংলাদেশের ফিনটেক খাত থেকে এই পুরস্কার পাওয়া প্রথম ব্যক্তি হলেন ‘নগদ’-এর নির্বাহী পরিচালক মো. সাফায়েত আলম।

এই পুরস্কার প্রাপ্তির প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, আমার অবদান ও কাজকে যে এমন অভিজাত একটি পত্রিকা স্বীকৃতি দিয়েছে, সে জন্য আমি খুবই সম্মানিত বোধ করছি। নগদ এই সময়ে বেশকিছু পরিস্থিতি বদলে দেয়া উদ্যোগ নিয়েছে, যা দেশের অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক খাতে বিরাট প্রভাব ফেলেছে। বিশ্বের দ্রততম বর্ধনশীল ফিনটেক প্রতিষ্ঠানের যাত্রা পথে কিছুটা অবদান রাখতে পারায় আমি গর্বিত।

২০২২ সালে এই পুরস্কার পাওয়া আরও উল্লেখযোগ্যরা হলেন গ্রিন এন্টারপ্রেনার অব দ্য ইয়ার আরব আমিরাতের মাতেও বোফা, রিয়েল এস্টেট খাতে অসামান্য অবদান রাখায় আরব আমিরাতের এসওয়াই ক্যাপিটাল এস্টেটসের শহীদ ইউসুফ, বেস্ট এইচআর ট্রান্সফরমেশনাল লিডার আরব আমিরাতের এডিএনওসি ডিস্ট্রিবিউশনের ড. শানাবাস কোয়া, ব্যাংক খাতে অসামান্য অবদান রাখায় ওমানের জায়িদ আল আব্দুল লাতিফ, সেরা স্যাটেলাইট এক্সিকিউটিভ হিসেবে সিঙ্গাপুরের ক্রিস্টিয়ান প্যাট্রো, সেরা ব্যাংকিং চেয়ারম্যান হিসেবে কাজাখস্তানের অভয় সারকুলভসহ আরও অনেকে এই পুরস্কার পেয়েছেন।

এর আগে বাংলাদেশ ডাক বিভাগের মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’কে ‘২০২০ সালের সেরা ডিজিটাল ফাইন্যান্সিয়াল সেবা প্রদানকারী’ হিসেবে পুরস্কার দেয় বিজনেস ট্যাবলয়েড। ২০১৯ সালের মার্চ মাসে যাত্রা শুরু করার পর দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম এমএফএস প্রতিষ্ঠান ‘নগদ’ এরই মধ্যে অনেক পুরস্কার ও স্বীকৃতি পেয়েছে। এসব পুরস্কারের মধ্যে আছে বিশ্ব তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক সার্ভিস এলায়েন্সের (ডব্লিউআইটিএসএ) দেয়া ‘ডিজিটাল অপরচুনিটি অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল ইনক্লুশন’ পুরস্কার বা ‘২০২০ সালের সেরা ফিনটেক স্টার্টআপ’ পুরস্কারসহ আরও বেশকিছু পুরস্কার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ