রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:৪২ অপরাহ্ন

মেসির রেকর্ডের রাতে আত্মঘাতী গোলে কপাল পুড়লো পিএসজির

প্রতিনিধির / ২৮ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর, ২০২২
মেসির রেকর্ডের রাতে আত্মঘাতী গোলে কপাল পুড়লো পিএসজির
মেসির রেকর্ডের রাতে আত্মঘাতী গোলে কপাল পুড়লো পিএসজির

দু’টি গোলই প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের (পিএসজি) করা। তবে লিওনেল মেসির গোলের পর নিজেদের জালেই বল ঠেলে দেন দানিলো পেরেইরা। আত্মঘাতী গোলের ধাক্কা গোটা ম্যাচে কাটিয়ে উঠতে পারেনি পিএসজি। বুধবার রাতে বেনফিকার মাঠ এস্তাদিও দা লুজে চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্বের ম্যাচে ১-১ গোলে ড্র করে লা প্যারিসিয়ানরা। দল পয়েন্ট হারালেও দারুণ রেকর্ড গড়েছেন মেসি।

ম্যাচের ২২তম মিনিটে পিএসজি ত্রয়ীর দারুণ বোঝাপড়ায় পিছিয়ে পড়ে বেনফিকা। ডান প্রান্তে বল পেয়ে ডি-বক্সের সামনে থাকা এমবাপ্পেকে পাস দেন মেসি। ফরাসি তারকা বল রিসিভ করে বাড়িয়ে দেন নেইমারের দিকে। ততক্ষণে মেসি বক্সের মাথায় চলে যান। নেইমারের পাস পেয়ে বাঁ পায়ের বাঁকানো শটে লক্ষ্যভেদ করেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার।

চ্যাম্পিয়নস লীগে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ৪০টি আলাদা দলের বিপক্ষে গোলের রেকর্ড গড়লেন মেসি। মৌসুম শুরুর আগে এই রেকর্ডে মেসি-রোনালদো ছিলেন এক কাতারে, উভয়েরই গোল ছিল ৩৮টি।

এবার ৩ ম্যাচ খেলে ২ গোল করে রোনালদোকে পেছনে ফেলেছেন মেসি। ম্যানইউর দুর্দশার ফলে এবার চ্যাম্পিয়নস লীগে নেই পর্তুগিজ সুপারস্টার। যে কারণে এই রেকর্ডের দৌড়ে মেসিকে তাড়া করতে কমপক্ষে এই মৌসুম অপেক্ষা করতে হবে রোনালদোকে।
এ নিয়ে চ্যাম্পিয়নস লীগে ১২৬ গোল করলেন মেসি। আর্জেন্টিনা অধিনায়কের চেয়ে এগিয়ে শুধু রোনালদো, ১৪০ গোল। তৃতীয় স্থানে থাকা রবার্ট লেভাদোভস্কির গোলসংখ্যা ৮৯। আর ৮৬ গোল নিয়ে চতুর্থ স্থানে করিম বেনজেমা। অর্থাৎ, চলতি মৌসুমে পোলিশ স্ট্রাইকারকে পেছনে ফেলার সুযোগ রয়েছে ফরাসি তারকার।

বিরতিতে যাওয়ার আগ মুহূর্তে সেই আত্মঘাতী গোল করেন দানিলো। ৪১তম মিনিটে বেনফিকার এনজো ফার্নান্দেজের সুইয় করা ক্রস ঠেকাতে গিয়ে নিজেদের জালেই বল পাঠান এই ব্রাজিলিয়ান রাইট ব্যাক। দোন্নারুম্মা কিছু বোঝার আগেই বল জালে জড়িয়ে যায়। এই গোল ঠেকাতে না পারলেও গোটা ম্যাচে নৈপুণ্য দেখিয়েছেন ইতালিয়ান গোলরক্ষক। পিএসজির গোলবারে ৮টি শট নিয়ে ৬টিই লক্ষ্যে রাখে বেনফিকা। যার মধ্যে অন্তত চারটি গোল হওয়ার মতো ছিল। তবে প্রাচীর তৈরি করে স্বাগতিকদের সেই প্রচেষ্টা রুখে দেন দোন্নারুম্মা।

ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় বেনফিকার মাঠে চার ম্যাচে একবারও জয় পায়নি পিএসজি। তিন হার ও এক ড্র।

চ্যাম্পিয়নস লীগে নিজেদের সবশেষ ৭ অ্যাওয়ে ম্যাচে মাত্র এক জয় পিএসজির। আর চ্যাম্পিয়নস লীগে ঘরের মাঠে নিজেদের ৯ ম্যাচে মাত্র একটি হেরেছে বেনফিকা।

‘এইচ’ গ্রুপের আরেক ম্যাচে ম্যাকাবি হাইফাকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে জুভেন্টাস। তুরিনের ক্লাবটির হয়ে আদ্রিয়েন র‌্যাবিওটের জোড়া গোলের মাঝে একবার লক্ষ্যভেদ করেন দুসান ভøাহোভিচ। হাইফার একমাত্র গোলটি আসে ডিন ডেভিডের পা থেকে।

৩ ম্যাচে ২ জয় ও ১ ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে ‘এইচ’ গ্রুপের শীর্ষে পিএসজি। সমান পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে বেনফিকা। গোল পার্থক্যে এগিয়ে মেসি-নেইমাররা। তিনে থাকা জুভেন্টাসের পয়েন্ট ৩। তিন ম্যাচে পয়েন্ট শূন্য ম্যাকাবি হাইফা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ