শিরোনাম:
চলতি অর্থবছরে রিজার্ভ থেকে ছয় হাজার ৫০ মিলিয়ন ডলার বিক্রি অবশেষে সিনেমার নায়ক হচ্ছেন আফরান নিশো সহযোগিতা চেয়ে ন্যাটো সদস্যদের প্রতি আহ্বান ইউক্রেনের আফগানিস্তানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বোমা হামলায় নিহত ১৫ আহত ২০ নাটোর জেলায় দুই কোটি ৪৫ লাখ ৪১ হাজার টাকার প্রণোদনা পাচ্ছেন ৪৪ হাজার কৃষক ঢাবি শিক্ষকদেরর গবেষণা ভাতাসহ অন্যান্য বাতিলকৃত সুযোগ-সুবিধা পুনর্বহালের দাবি ইরানকে হারিয়ে শেষ ষোলতে যাওয়ার টিকিট পেল যুক্তরাষ্ট্র সম্মুখসারির যোদ্ধা, ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তি এবং গর্ভবতীদের টিকার চতুর্থ ডোজ দেয়ার সুপারিশ তিন মাস অপেক্ষার পর আইন মন্ত্রণালয়ের সাড়া পেল ইসি নতুন করে রেকর্ড বইয়ে নাম তুলেছে ব্রাজিল
বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:৩৬ পূর্বাহ্ন

রাজশাহীতে দুর্বৃত্তের হাতে খুন হওয়া তরুণী ,ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা

প্রতিনিধির / ২৯ বার
আপডেট : সোমবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২২
রাজশাহীতে দুর্বৃত্তের হাতে খুন হওয়া তরুণী ,ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা
রাজশাহীতে দুর্বৃত্তের হাতে খুন হওয়া তরুণী ,ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা

রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় দুর্বৃত্তের হাতে খুন হওয়া তরুণী সাহেরা খাতুন (২০) ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। তাকে কে বা কারা কেন হত্যা করেছে তা বুঝতে পারছে না স্বজনরা। তাই হত্যার ঘটনায় করা মামলার এজাহারে কারও নাম নেই। অজ্ঞাত ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলাটি করা হয়েছে।নিহত সাহেরা খাতুনের বাবা দানেস আলী বাদি হয়ে শনিবার রাতে গোদাগাড়ী থানায় হত্যা মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার এজাহারে তিনি বলেছেন, তার মেয়ে ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। গত বুধবার সন্ধ্যায় সাহেরা বাড়ি থেকে বের হয়। তিনি শ্বশুরবাড়ি যাবেন বলে তার মাকে জানিয়েছিলেন। তবে বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর থেকেই তার আর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। সাহেরার বাবার বাড়ি গোদাগাড়ীর চাতরা গ্রামে। আর শ্বশুরবাড়ি পাশের তানোর উপজেলার সরনজাই মির্জাপুর গ্রামে। তার স্বামী ঢাকায় নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করেন। শনিবার সকালে বাবার বাড়ি থেকে প্রায় ৩ কিলোমিটার দূরে গড়গড়িয়া এলাকার একটি ধানক্ষেতে সাহেরার অর্ধগলিত মৃতদেহ পাওয়া যায়। তার পোশাক ঝুলিয়ে রাখা হয়েছিল ধান ক্ষেতের পাশের দুটি গাছের সঙ্গে। দুপুরে পুলিশ সাহেরার মৃতদেহটি উদ্ধার করে।

গোদাগাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম জানান, স্ত্রীকে খুনের খবর পেয়ে সাহেরার স্বামী ঢাকা থেকে এসেছেন। কে বা কারা তার স্ত্রীকে খুন করতে পারে তা তিনি বলতে পারছেন না। সাহেরার বাবাও কিছু জানাতে পারছেন না। তিনি অজ্ঞাত ব্যক্তির বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন।ওসি জানান, সাহেরার নিজের কোনো মোবাইল ফোন ছিল না। মায়ের মোবাইল ফোনেই তিনি কথা বলতেন। কার কার সঙ্গে তার কথা হয়েছে সেসব তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

ওসি বলেন, প্রাথমিকভাবে আমাদের ধারণা সাহেরা কোনো খারাপ লোকের পাল্লায় পড়েছিলেন। সবকিছুই তদন্ত করে দেখছি। এখনো কোনো কিছু নিশ্চিত হতে পারিনি। তবে তদন্তে সবই বেরিয়ে আসবে। ঘটনার সঙ্গে যে বা যারাই জড়িত থাকুক না কেন- খুঁজে বের করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ