বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:২৪ অপরাহ্ন

নির্ঘুম রাতের পর চারদিকে শুধুই মিছিল আর মিছিল

প্রতিনিধির / ৩১ বার
আপডেট : শনিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২২
নির্ঘুম রাতের পর চারদিকে শুধুই মিছিল আর মিছিল
নির্ঘুম রাতের পর চারদিকে শুধুই মিছিল আর মিছিল

গতকাল থেকেই মূলত খুলনা মহানগরমুখী নেতা-কর্মীদের যাত্রা শুরু হয়। পরিবহন সঙ্কটে যে যেভাবে পারছেন আসছেন। গতরাতে শহরের রাজপথে দেখা গেছে অভিনব সব দৃশ্য। হাজার হাজার নেতা-কর্মী নির্ঘুম রাত্রি যাপন করেছেন রাজপথে। ছিল না কোনো বিছানা। অনেককে চিড়া-মুড়ি খেতে দেখা গেছে।

রাতে নগরীর কেডি ঘোষ রোডস্থ বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের ভেতরে-বাইরে নেতা-কর্মীদের ছিল উপচে পড়া ভিড়। জায়গা স্বল্পতার কারণে পার্টি অফিসের সামনের তিনটি সড়কে রাতে অবস্থান করেন কর্মীরা। সদর থানার উত্তর পাশে মহিলা দলের নেতাকর্মীদের দেখা গেছে। পার্টি অফিসের নিকটস্থ মোড়ে মেহেরপুর থেকে আসা নেতাকর্মীদের, অফিসের নিচে চুয়াডাঙ্গা, যশোরসহ খুলনা জেলার কর্মীদের অবস্থান ছিল। দূরবর্তী জেলার নেতাকর্মীরা বাস, লঞ্চ বন্ধ থাকায় ছোট ছোট পরিবহনে খুলনায় এসেছেন।

পরিবহন ধর্মঘট। বন্ধ নৌযান। চলছে গ্রেফতার অভিযান, পথে পথে তল্লাশি। এমন প্রতিকূলতা পেরিয়েই খুলনায় আজ বিএনপির গণসমাবেশে জড়ো হতে শুরু করেছে হাজার হাজার নেতা-কর্মী। নির্ঘুম রাতের পর চারদিকে এখন শুধুই মিছিল আর মিছিল। নেতা-কর্মীরা শোডাউন দিচ্ছেন শহরজুড়ে।

সরেজমিন কথা বলে জানা গেছে, বাস ও লঞ্চ ধর্মঘটের কারণে মাগুরা, মেহেরপুর, ঝিনাইদহ, যশোরসহ বিভিন্ন জেলার নেতাকর্মীরা দুদিন আগেই খুলনায় পৌঁছান। অনেকেই বাসে, মাইক্রো, মোটরসাইকেলে যান। আবার অনেকে বাধা পেয়ে হেঁটেই পৌঁছান।

নেতারা জানান, তাদের পুলিশের বাধার সম্মুখীনও হতে হয়েছে। তবে তারা কৌশল অবলম্বন করে খুলনা এসে পৌঁছেছেন। খুলনায় তারা নিকট-আত্মীয়দের বাড়িতে উঠেছেন। এছাড়া স্থানীয় বিএনপি নেতারা দূর থেকে আসা নেতাকর্মীদের আবাসন ও খাওয়ার ব্যবস্থা করেছেন।

নগরীর ডাকবাংলা মোড়ের সোনালী ব্যাংক চত্বরে আজ বিকেল ২টা থেকে শুরু হবে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ। জ্বালানি তেল ও নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি, দলীয় কর্মসূচিতে গুলি করে ৫ নেতা-কর্মী হত্যার প্রতিবাদ ও নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকারসহ কয়েকটি দাবিতে এ সমাবেশ কর্মসূচি পালন করছে বিএনপি।

বিএনপির এ সমাবেশকে কেন্দ্র করে খুলনা নগরীসহ বিভিন্ন জেলায় বিএনপি নেতা-কর্মীদের ব্যাপক ধরপাকড়ও অব্যাহত রয়েছে। যার সংখ্যা এখন পর্যন্ত প্রায় দুই শ’ হবে বলে দাবি বিএনপির। গতকাল মাগুরা জেলা বিএনপির নেতাকর্মীদের একটি বাসসহ সবাইকেই সোনাডাঙ্গা থানা পুলিশ আটক করেছে। বাগেরহাট জেলা বিএনপির ৫০ নেতা-কর্মীকে সদর থানা পুলিশ আটক করেছে। নগরীর বিভিন্ন স্থানে অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আটক করা হয়েছে মোরেলগঞ্জ থেকে আসা ১৩ জনকে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ