মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১১:৪১ পূর্বাহ্ন

ভোটকক্ষের গোপন বুথে সিসি ক্যামেরা স্থাপন নিয়ে যা ব্যাখ্যা করেছে ইসি

প্রতিনিধির / ১৯ বার
আপডেট : রবিবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২২
ভোটকক্ষের গোপন বুথে সিসি ক্যামেরা স্থাপন নিয়ে যা ব্যাখ্যা করেছে ইসি
ভোটকক্ষের গোপন বুথে সিসি ক্যামেরা স্থাপন নিয়ে যা ব্যাখ্যা করেছে ইসি

“জাতীয় সংসদের ৩৩ গাইবান্ধা-৫ শূন্য আসনের উপনির্বাচনে ভোটকক্ষে ভোট প্রদানের সার্বিক কার্যক্রম মনিটরিংয়ের জন্য নির্বাচন কমিশন ভোট কক্ষে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করেছিল। গোপন কক্ষে ভোটার কাকে ভোট দিলেন তা দেখার কোনো সুযোগ নেই। তবে গোপন কক্ষে ভোটারের সঙ্গে কেউ প্রবেশ করল কিনা বা ভোটার ছাড়া অন্য কেউ প্রবেশ করল কিনা, একই সঙ্গে একাধিক ব্যক্তি প্রবেশ করল কিনা, ভোট দেওয়ার সময় কেউ উঁকি দিয়ে দেখে কিনা বা পাশে দাঁড়িয়ে কোনো নির্দেশ দিল কিনা তা দেখা যায়।

ভোটকক্ষের গোপন বুথে সিসি ক্যামেরা স্থাপন নিয়ে নিজেদের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছে কাজী হাবিবুল আউয়াল নেতৃত্বাধীন নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

রোববার (২৩ অক্টোবর) নির্বাচন কমিশনের যুগ্মসচিব ও জনসংযোগ পরিচালক এস এম আসাদুজ্জামান এ বিষয়ে বলেন, কারও কারও বক্তব্য বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচারিত হয়েছে। প্রচারিত বক্তব্য মতে, ভোট কক্ষের গোপন বুথে সিসি ক্যামেরা বসিয়ে কে কাকে ভোট দিচ্ছে তা দেখা মানুষের ব্যক্তিগত গোপনীয়তার লঙ্ঘন। গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচনে নির্বাচন কমিশন সেই কাজটি করে নাগরিকদের মৌলিক অধিকারের ওপর হস্তক্ষেপ করেছে মর্মে কারও কারও বক্তব্যে প্রচারিত হয়েছে। তবে গণমাধ্যমে প্রচারিত এ ধরনের বক্তব্য মোটেও সঠিক নয়। একই সঙ্গে এই ধরনের বক্তব্য বিভ্রান্তিকর।

“ইভিএমে কীভাবে ভোট দিতে হয় সে বিষয়ে ভোটার শিক্ষার জন্য প্রচারণা চালানো হয়েছে। এছাড়া একজন ভোটারকে ভোট দেওয়ার জন্য গোপনকক্ষে প্রবেশের পূর্বেই সংশ্লিষ্ট নির্বাচন কর্মকর্তারা ডামি ব্যালট ইউনিটে দেখিয়ে দেন কীভাবে ভোট দিতে হবে। কাজেই ভোট কীভাবে দিতে হবে এটা দেখানোর জন্য ভোটারের সঙ্গে গোপনকক্ষে অন্য কারও প্রবেশের কোনো সুযোগ নেই।”

তিনি জানান, গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ, ১৯৭২ এর ৩১(৭) ধারা অনুযায়ী ভোটার দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী বা অন্যভাবে এরূপ অক্ষম হন যে তিনি কোনো সঙ্গীর সাহায্য ছাড়া ভোট দিতে পারবেন না, সেক্ষেত্রে প্রিজাইডিং অফিসার ওই ভোটারের পছন্দমতো ও বিশ্বস্ত ব্যক্তিকে তার ভোটপ্রদানে সাহায্য করার জন্য গোপন কক্ষে নিতে পারবেন। তার সঙ্গে কোনভাবেই কোনো ভোটগ্রহণকারী কর্মকর্তা, এজেন্ট বা অন্য কেউ গোপন কক্ষে প্রবেশ করতে পারবেন না।

অর্থাৎ বিষয়টি খুবই স্পষ্ট যে ভোটকক্ষে সিসি ক্যামেরা স্থাপনে কোনক্রমেই ভোট প্রদানের গোপনীয়তা নষ্ট হয় নাই। নির্বাচন কমিশন প্রতিটি ভোটারের ভোট প্রদানের গোপনীয়তা রক্ষায় আইন অনুযায়ী সব ব্যবস্থা গ্রহণ করে থাকে। সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানে ব্যাঘাত ঘটে এমন বিভ্রান্তিকর বক্তব্য প্রদান না করে আইন অনুযায়ী যথাযথভাবে নির্বাচন পরিচালনায় সহায়তা করার জন্য নির্বাচন কমিশন সবার প্রতি আহবান জানাচ্ছে বলে জানান তিনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ