শিরোনাম:
চলতি অর্থবছরে রিজার্ভ থেকে ছয় হাজার ৫০ মিলিয়ন ডলার বিক্রি অবশেষে সিনেমার নায়ক হচ্ছেন আফরান নিশো সহযোগিতা চেয়ে ন্যাটো সদস্যদের প্রতি আহ্বান ইউক্রেনের আফগানিস্তানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বোমা হামলায় নিহত ১৫ আহত ২০ নাটোর জেলায় দুই কোটি ৪৫ লাখ ৪১ হাজার টাকার প্রণোদনা পাচ্ছেন ৪৪ হাজার কৃষক ঢাবি শিক্ষকদেরর গবেষণা ভাতাসহ অন্যান্য বাতিলকৃত সুযোগ-সুবিধা পুনর্বহালের দাবি ইরানকে হারিয়ে শেষ ষোলতে যাওয়ার টিকিট পেল যুক্তরাষ্ট্র সম্মুখসারির যোদ্ধা, ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তি এবং গর্ভবতীদের টিকার চতুর্থ ডোজ দেয়ার সুপারিশ তিন মাস অপেক্ষার পর আইন মন্ত্রণালয়ের সাড়া পেল ইসি নতুন করে রেকর্ড বইয়ে নাম তুলেছে ব্রাজিল
বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:০৭ পূর্বাহ্ন

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়কে গুচ্ছ পদ্ধতির আওতায় আসতে হবে : শিক্ষামন্ত্রী

প্রতিনিধির / ২৬ বার
আপডেট : শনিবার, ৫ নভেম্বর, ২০২২
পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়কে গুচ্ছ পদ্ধতির আওতায় আসতে হবে : শিক্ষামন্ত্রী
পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়কে গুচ্ছ পদ্ধতির আওতায় আসতে হবে : শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি বলেছেন, ভর্তি পরীক্ষায় সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়কে গুচ্ছ পদ্ধতির আওতায় আসতে হবে। এতে শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের হয়রানি কমে। শিক্ষাব্যবস্থার ক্ষেত্রে আমরা পাশ্চাত্যের দিকে তাকিয়ে থাকি। আমাদের এখান থেকে সবচেয়ে মেধাবীরা সেসব দেশে পড়তে যায়, গবেষণা করতে যায়। সেসব দেশে যদি একটি মাত্র পরীক্ষা দিয়ে হার্ভার্ড বা এমআইটি সব জায়গায় যায় তাহলে আমরা কেন পারব না?এক্ষেত্রে আমরা অনেক প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে রেখেছি। ভর্তির ক্ষেত্রে সব দেয়াল তুলে দিতে হবে। যেকোন বয়সের যেকোন মানুষের শিক্ষার অধিকার আছে। বয়স কুড়ি বা পঞ্চাশ সেটা কোন বিবেচ্য বিষয় নয় বলে মন্তব্য করেন শিক্ষামন্ত্রী।

 

শুক্রবার (৪ নভেম্বর) জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের জহির রায়হান অডিটোরিয়ামে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে আয়োজিত সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

 

এসময় তিনি আরও বলেন, অনেকেই বলে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো পিছিয়ে আছে কেন? আবার অনেকে বলেন আমদের র‌্যাংকিংয়ের কোন দরকার নাই। এখানে কোনটাই সঠিক অ্যাপ্রোচ না। বিদেশেও উচ্চশিক্ষার জন্য যাওয়ার দরকার আছে। তবে সেখানে যাওয়ার জন্য যে ফ্যাক্টরগুলো কাজ করে সেগুলো নিয়ে ভাবতে হবে। কোন জায়গায় আমরা পিছিয়ে আছি, অন্যান্য দেশের সাথে রিসার্চ কোলাবোরেশন আছে কি না; প্রকাশনা আছে কিনা; শিক্ষক-শিক্ষার্থী এক্সচেঞ্জ আছে কিনা। দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো কোন কোন ক্ষেত্রে পিছিয়ে আছে সেদিকে আপনারা মনোযোগী হলেই আমরাও সামনের সারিতে থাকবে।এসময় অন্যান্যদের মধ্যে জাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. নুরুল আলম, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. তাহমিনা ফেরদৌসসহ বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ