সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০৫:১৫ পূর্বাহ্ন

পয়ঃবর্জ্যের উৎপত্তিস্থলে ব্যবস্থাপনার আহ্বান : ডিএনসিসি মেয়র

প্রতিনিধির / ২৩ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২২
পয়ঃবর্জ্যের উৎপত্তিস্থলে ব্যবস্থাপনার আহ্বান : ডিএনসিসি মেয়র
পয়ঃবর্জ্যের উৎপত্তিস্থলে ব্যবস্থাপনার আহ্বান : ডিএনসিসি মেয়র

শহরের পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্য রক্ষার জন্য পয়ঃবর্জ্যের উৎপত্তিস্থলে ব্যবস্থাপনার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।তিনি বলেন, ‘প্রতিটি ভবনে ও বাড়িতে জেনারেটর, এসি ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় ইকুইপমেন্ট ঠিকই স্থাপন করা হয়। কিন্তু কার্যকর পয়ঃবর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য ভবনে ইটিপি স্থাপন করা হয় না। পয়ঃবর্জ্যের সংযোগ সরাসরি বৃষ্টির পানি নামার সারফেস ড্রেন দিয়ে শহরের খাল ও জলাশয় দূষণ করছে। শহর বাঁচাতে অ্যাট সোর্সে পয়ঃবর্জ্য ব্যবস্থাপনার বিকল্প নেই।’

বুধবার (৩০ নভেম্বর) স্থানীয় সময় সকালে থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজিতে গ্লোবাল ওয়াটার অ্যান্ড স্যানিটেশন সেন্টার লঞ্চ অনুষ্ঠানে ‘প্যারাডাইম শিফট-স্কেলিং দ্য এসডিজি ৬.২ ইমপ্যাক্টস’ শীর্ষক প্যানেল আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন। বিল ও মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন এবং ইউনিসেফ যৌথভাবে অনুষ্ঠানটি আয়োজন করেন।

প্যানেল আলোচনায় ডিএনসিসি মেয়র বলেন, ‘শহরের পরিবেশ রক্ষায় নগরবাসীকে নিজস্ব উদ্যোগে বাসাবাড়িতে কার্যকর পয়ঃবর্জ্য ব্যবস্থাপনা করতে হবে। এ বিষয়ে ডিএনসিসিতে আমরা ব্যাপক সচেতনতা কার্যক্রম পরিচালনা করছি। প্রতিটি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর, বিভিন্ন অঞ্চলের সোসাইটিগুলোর প্রতিনিধিদের নিয়ে সভা ও ওয়ার্কশপ করেছি। তাদের নিজ নিজ এলাকায় জনগণকে সচেতন করার নির্দেশ দিয়েছি। খালে বা সারফেস ড্রেনে পয়ঃবর্জ্য নিষ্কাশনের সংযোগ পাওয়া গেলে সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে তা বন্ধ করে দেওয়া হবে।’

মেয়র আরও বলেন, ‘পয়ঃবর্জ্য ব্যবস্থাপনায় সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকেও সংযুক্ত করতে হবে। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এ সমস্যা সমাধান সম্ভব। পয়ঃবর্জ্য ব্যবস্থাপনায় প্রয়োজনীয় ইকুইপমেন্ট বাজারে সহজলভ্য করতে হবে।’এ সময় কার্যকর পয়ঃবর্জ্য ব্যবস্থার জন্য জনগণের মানসিক পরিবর্তন খুবই জরুরি বলে উল্লেখ করেন তিনি। সবশেষে ডিএনসিসি এলাকায় আধুনিক পয়ঃবর্জ্য ব্যবস্থাপনায় আন্তর্জাতিক সহযোগী সংগঠনগুলোকে গবেষণা ও কারিগরি সহায়তা দেওয়ার আহ্বান করেন মেয়র মো. আতিক।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ