শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ০৪:১২ অপরাহ্ন

চীনের সঙ্গে সীমান্তে নিরাপত্তা বাড়িয়েছে ভারত

প্রতিনিধির / ৯ বার
আপডেট : বুধবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০২২
চীনের সঙ্গে সীমান্তে নিরাপত্তা বাড়িয়েছে ভারত
চীনের সঙ্গে সীমান্তে নিরাপত্তা বাড়িয়েছে ভারত

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর জানিয়েছেন, তার দেশ চীনের সঙ্গে একটি বিতর্কিত সীমান্ত এলাকায় তার সামরিক মোতায়েন অভূতপূর্ব পর্যায়ে বাড়িয়েছে। সোমবার (১৯ ডিসেম্বর) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, অরুণাচল প্রদেশের সীমান্ত এলাকায় দুই দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষের কয়েকদিন পর সেনা মোতায়েনের ঘোষণা দেন জয়শঙ্কর। ভারত চীনকে একতরফাভাবে সীমান্ত অঞ্চলের স্থিতাবস্থা পরিবর্তন করতে দেবে না বলে জানান তিনি।


অরুণাচল প্রদেশের সীমান্ত এলাকায় দুই দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষের কয়েকদিন পর সেনা মোতায়েনের ঘোষণা দেন জয়শঙ্কর।
চীন ও ভারতের মধ্যে তিন হাজার ৪৪০ কিলোমিটার দীর্ঘ বিতর্কিত সীমান্ত রয়েছে। লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল (এলএসি) নামক এই সীমানাটি খারাপভাবে চিহ্নিত করা হয়েছে।পার্বত্য অঞ্চলে অনেক নদী, হ্রদ ও তুষার আচ্ছাদিত পাহাড়ের কারণে সময়ে সময়ে এই ‘রেখা’ পরিবর্তিত হয়। তখন অনেক জায়গায় বিশ্বের দুই বৃহত্তম দেশের সেনাবাহিনী একে অপরের মুখোমুখি হয়ে যায়।

চীন ও ভারতের মধ্যে তিন হাজার ৪৪০ কিলোমিটার দীর্ঘ বিতর্কিত সীমান্ত রয়েছেউত্তেজনা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মাঝে মাঝে ছোটখাটো সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ২০২০ সালে লাদাখ অঞ্চলের গালওয়ান উপত্যকায় এই জাতীয় ইস্যুতে দুই পক্ষের মধ্যে একটি বড় যুদ্ধ হয়েছিল।অবশেষে ৯ ডিসেম্বর অরুণাচল প্রদেশের তাওয়াং সেক্টরে উভয় পক্ষের মধ্যে আরেকটি সংঘর্ষ হয়। এতে কয়েকজন সেনা সামান্য আহত হয়।

২০২০ সালে লাদাখ অঞ্চলের গালওয়ান উপত্যকায় এই জাতীয় ইস্যুতে দুই পক্ষের মধ্যে একটি বড় যুদ্ধ হয়েছিল।
ভারত জানিয়েছে, চীনের সেনাদের অনুপ্রবেশের কারণে সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষের পর চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, সীমান্ত পরিস্থিতি স্থিতিশীল রয়েছে এবং বিষয়টি নিয়ে দুই পক্ষ আলোচনা করছে।

সোমবার ইন্ডিয়া টুডে কে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্কর জানান, নজিরবিহীনভাবে চীন সীমান্তে এখন ভারতীয় সেনা মোতায়েন করা হচ্ছে। চীনের আগ্রাসন মোকাবেলায় এটি করা হয়েছে। একতরফাভাবে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা পরিবর্তনের কোনো প্রচেষ্টা রুখতে আজ ভারতীয় সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।

চীনের সেনাদের অনুপ্রবেশের কারণে সংঘর্ষ শুরু হয়।
তবে জয়শঙ্করের বক্তব্যের বিষয়ে চীন এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি। সাম্প্রতিক ভারত-চীন সীমান্ত সংঘর্ষ নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গন উত্তাল হয়ে উঠেছে। সীমান্ত পরিস্থিতি নিয়ে অবিলম্বে আলোচনার দাবি পূরণ না হওয়ায় বিরোধী দলগুলো সংসদ থেকে ওয়াকআউট করে।

ভারতের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের নেতা রাহুল গান্ধী অভিযোগ করেন, চীনের হুমকির ব্যাপারে সরকার উদাসীন। সীমান্তে চীনের সেনারা ভারতীয় সেনাদের নাস্তানাবুদ করছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন।

তবে জয়শঙ্করের বক্তব্যের বিষয়ে চীন এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি।
এর প্রতিক্রিয়ায় সোমবার ভারতের পার্লামেন্টে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্কর জানান, রাহুল গান্ধী তার কথার মাধ্যমে ভারতীয় সেনাবাহিনীকে ‘অসম্মান’ করেছেন। পরিস্থিতি নিয়ে সরকার নীরব থাকার অভিযোগও অস্বীকার করেন তিনি।জয়শঙ্কর বলেন, ‘চীনের ব্যাপারে আমরা নীরব থাকলে সীমান্তে ভারতীয় সেনা পাঠাল কে? আমরা শান্ত থাকলে কেন আমরা আজ চীনকে চাপ কমাতে চাপ দিচ্ছি?’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ