শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৯:২৪ পূর্বাহ্ন

চট্টগ্রাম বন্দরে প্রবেশ করলো ২০০ মিটার লম্বা ড্রাফট জাহাজ

প্রতিনিধির / ২৮ বার
আপডেট : সোমবার, ১৬ জানুয়ারী, ২০২৩
চট্টগ্রাম বন্দরে প্রবেশ করলো ২০০ মিটার লম্বা ড্রাফট জাহাজ
চট্টগ্রাম বন্দরে প্রবেশ করলো ২০০ মিটার লম্বা ড্রাফট জাহাজ

চট্টগ্রাম বন্দরের ৯ মিটারের বেশি ড্রাফট-এর বড় জাহাজ প্রবেশ করার সক্ষমতা ছিলো না এতোদিন। এবার বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধির অংশ হিসেবে আজ সোমবার (১৬ জানুয়ারী) ১০ মিটার ড্রাফট ও ২০০ মিটার দীর্ঘ বড় জাহাজ প্রবেশ করতে সক্ষম হয়েছে।‘কমন অ্যাটলাস’ নামের মার্শাল আইল্যান্ডের পতাকাবাহী জাহাজটি আজ চট্টগ্রাম বন্দরের কনটেইনার টার্মিনালে (সিসিটি) এসে পৌঁছায়। দুপুরে বেলুন উড়িয়ে ১০ মিটার ড্রাফট-এর এই জাহাজটির বার্থিং কার্যক্রম উদ্বোধন করেন নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

চট্টগ্রাম বন্দর সূত্রে জানা গেছে, ১৯৭৫ সালে বন্দরে ১৬০ মিটার লম্বা ও সাড়ে ৭ মিটার ড্রাফটের জাহাজ ভিড়ানো হতো। ক্রমান্বয়ে বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধি করে ১৯৮০ সালে ১৭০ মিটার লম্বা ও ৮ মিটার ড্রাফট করা হয়। ১৯৯০ সালে ১৮০ মিটার লম্বা ও সাড়ে ৮ মিটার ড্রাফটে উন্নীত করা হয়। ১৯৯৫ সালে ১৮৬ মিটার লম্বা ও ৯ দশমিক ২ মিটার ড্রাফট করা হয়। ২০১৪ সালে ১৯০ মিটার লম্বা ও সাড়ে ৯ মিটার ড্রাফটের জাহাজ ভিড়ানো শুরু হয়। সর্বশেষ আজ ১০ মিটার ড্রাফট ও ২০০ মিটার লম্বা জাহাজ সরাসরি বন্দর টার্মিনালে ভিড়ানোর সক্ষমতা অর্জন করে চট্টগ্রাম বন্দর।

অনুষ্ঠানে নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘আজ বন্দরের জন্য ঐতিহাসিক দিন। আজ আমরা বন্দরে ১০ মিটার ড্রাফট নিশ্চিত করতে পেরেছি। এটি দেশের জন্য গর্বের একটি বিষয়।’তিনি আরও বলেন, ‘পদ্মা সেতু ও রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে চট্টগ্রাম বন্দরের ভূমিকা আছে। ১৪ বছর বাংলাদেশের অগ্রগতির কৃতিত্বের অন্যতম দাবিদার চট্টগ্রাম বন্দর। বন্দরের অংশীজনদের দাবি সরকার গুরুত্ব দেয়। ১৮টি গ্যান্ট্রি ক্রেন এ বন্দরে রয়েছে। এখানে ৪৮ ঘণ্টায় একটি জাহাজ হ্যান্ডেল হচ্ছে।’

অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার ছিলেন ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন। তিনি বলেন, ‘এটি চট্টগ্রাম বন্দর ও বাংলাদেশের জন্য ঐতিহাসিক দিন। ২০০ মিটার লম্বা বড় জাহাজ ভিড়েছে চট্টগ্রাম বন্দরে। এর ফলে বাংলাদেশের আমদানি-রপ্তানি ক্ষেত্রে আরও গতি আসবে।’সভাপতির বক্তব্যে বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম শাহজাহান বলেন, ‘২০০ মিটার লম্বা ও ১০ মিটার ড্রাফটের জাহাজ ‘কমন অ্যাটলাস’ ভিড়েছে। বন্দরের সক্ষমতা বাড়াতে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বঙ্গবন্ধু বন্দরকে মাইনমুক্ত করে চালু করেছিলেন। জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমুদ্রসীমা জয় করেছেন। বে টার্মিনাল জাতির চাহিদা। ডিপিপি প্রণয়নের কাজ চলছে।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ