সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ১১:১৭ পূর্বাহ্ন

দুই হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ২৫টি শহরে অন্তর্ভুক্তিমূলক স্যানিটেশন প্রকল্প অনুমোদন

প্রতিনিধির / ৫ বার
আপডেট : মঙ্গলবার, ১৭ জানুয়ারী, ২০২৩
দুই হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ২৫টি শহরে অন্তর্ভুক্তিমূলক স্যানিটেশন প্রকল্প অনুমোদন
দুই হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ২৫টি শহরে অন্তর্ভুক্তিমূলক স্যানিটেশন প্রকল্প অনুমোদন

দুই হাজার ২১০ কোটি ৭০ লাখ টাকা ব্যয়ে দেশের ২৫টি শহরে অন্তর্ভুক্তিমূলক স্যানিটেশনের ব্যবস্থা করবে সরকার। এই কাজ বাস্তবায়ন করবে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর। মেয়াদ ২০২২ সালের অক্টোবর হতে ২০২৭ সালের জুন পর্যন্ত।

মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় এই প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়। এদিন প্রায় ১০ হাজার ৬৪০ কোটি ৫৮ লাখ টাকা ব্যয়ে অনুমোদন হয়েছে ১১টি প্রকল্প। এর মধ্যে সরকারি অর্থায়ন রয়েছে সাত হাজার ৮২৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা, আর বৈদেশিক অর্থায়ন দুই হাজার ৮৮০ কোটি ১৮ টাকা।সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী এবং একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা। রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে এ সভা হয়। সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এই তথ্য জানান।

বাংলাদেশের জেলা শহরের ২৫টি পৌরসভায় নিরাপদ ও টেকসই স্যানিটেশন সিস্টেম এবং সুষ্ঠু বর্জ্য ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে জনস্বাস্থ্য, জীবনযাত্রার মান ও পরিবেশ ব্যবস্থার উন্নয়ন করা।১২ হাজার ৩১২টি হাউজহোল্ড ল্যাট্রিন ও এক হাজার ৩৫০টি কমিউনিটি ল্যাট্রিন স্থাপন করা। এছাড়া ১৩০টি পাবলিক টয়লেট ও ১৭৩টি ডি-ওয়াট সিস্টেম, ৩১ হাজার ৪৯৬টি পয়ঃবর্জ্য ধারক বা কন্টেইনমেন্ট সিস্টেম ও ২৭টি পয়ঃবর্জ্য বা ফেকাল স্লাজ ড্রাইং সিস্টেম, ৩০টি কঠিন বর্জ্য বা সলিড ওয়েস্ট ব্যবস্থাপনা প্লান্ট (সর্টিং, কম্পোস্টিং, ল্যান্ড ফিলিং, তরল বর্জ্য পরিশোধন বা লিচেট ট্রিটমেন্ট) এবং ৩২টি কঠিন ও পয়ঃবর্জ্য পরিশোধন, সম্পদে পরিবর্তন, পুনঃ ব্যবহার ও রূপান্তরের লক্ষ্যে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবস্থা করা।

এছাড়া ৩৪৭ কিলোমিটার বিভিন্ন ধরনের আরসিসি ড্রেন, ৩০টি উৎপাদক নলকূপ, ১০০ কিলোমিটার পাইপলাইন, ১০০টি ডিস্লাজিং ট্রাক ও ৫০টি ডাম্প ট্রাক, ২৭০টি কঠিন বর্জ্য সংগ্রাহক ভ্যান ও ৮১০টি হ্যান্ড ট্রলি এবং ২৫টি এক্সক্যাভেটর কেনা হবে।পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে দেশের ২৫টি জেলা শহরের সদর পৌরসভায় নিরাপদ স্যানিটেশন হবে। এতে করে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উন্নয়নের মাধ্যমে শহরের পরিবেশ সংরক্ষণ এবং স্বাস্থ্য ও জীবন-যাত্রার মান উন্নয়ন করা সম্ভব হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ