বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০১:৫৬ পূর্বাহ্ন

রুশ বাহিনীর হামলার তীব্রতায় বাখমুত থেকে পিছু হটছে ইউক্রেন

প্রতিনিধির / ৮০ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২ মার্চ, ২০২৩
রুশ বাহিনীর হামলার তীব্রতায় বাখমুত থেকে পিছু হটছে ইউক্রেন
রুশ বাহিনীর হামলার তীব্রতায় বাখমুত থেকে পিছু হটছে ইউক্রেন

বিগত এক বছরের যুদ্ধে ইউক্রেনের বেশ কয়েকটি অঞ্চল দখলে নিয়েছে রাশিয়ার বাহিনী। এসব অঞ্চলের মধ্যে রয়েছে-ডোনেটস্ক, লুহানস্ক, জাপোরিঝঝিয়া ও খেরসন। গণভোটের মাধ্যমে এই অঞ্চলগুলো নিজেদের ভূখণ্ডের সঙ্গে একভূত করে নিয়েছে রাশিয়া।

তবে এই অঞ্চলগুলো পুনরুদ্ধারে জোর তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছিল ইউক্রেনীয় বাহিনী। এরই অংশ হিসেবে ডোনেটস্কের বাখমুত শহরে তীব্র লড়াই চলছিল।এবার সেখান থেকেও পিছু হটার ইঙ্গিত দিয়েছে ইউক্রেনীয় বাহিনী। কয়েক মাস ধরে বাখমুতে রাশিয়া ও ইউক্রেনীয় সেনাদের মধ্যে তীব্র লড়াই হচ্ছে। তবে গত দুই সপ্তাহে রুশ বাহিনীর হামলার তীব্রতা এতটাই বেড়েছে যে, সেখান থেকে এখন কৌশলগত কারণে পিছু হটার পরিকল্পনা করছেন ইউক্রেনের সেনারা।বুধবার প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির উপদেষ্টা আলেক্সান্ডার রোদনেয়ানস্কি যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন।

তিনি বলেন, যদি প্রয়োজন হয় তা হলে ইউক্রেনীয় সেনারা সেখান থেকে সরে যাবেন।জেলেনস্কির অর্থনীতিবিষয়ক এ উপদেষ্টা বলেন, আমাদের সেনাবাহিনী অবশ্যই সব বিকল্প বিবেচনা করবে। তারা এখন পর্যন্ত শহরের নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখেছে, কিন্তু যদি প্রয়োজন হয়, তা হলে কৌশলগত কারণে তারা সরে যাবে। আমরা কোনও কারণ ছাড়া আমাদের সব সেনাকে বলি দিতে পারব না।

জানা গেছে, বর্তমানে ডোনেটস্কের অর্ধেক অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ রয়েছে রুশ সেনাদের হাতে। পুরো নিয়ন্ত্রণ নিতে হলে তাদের অবশ্যই বাখমুত দখল করতে হবে। এরপর ডোনেটস্কের অন্য শহরগুলোর দখলও নিতে পারবে তারা।এদিকে ইউক্রেনের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা বাখমুত থেকে সরে যাওয়ার ইঙ্গিত দিলেও রাশিয়ার ভাড়াটে সেনাবাহিনী ওয়াগনার গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ইয়েভগিনি প্রিগোজিন দাবি করেছেন, বাখমুতে আরও শক্তিশালী প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে ইউক্রেন। তিনি জানান, শহরটিতে নতুন করে আরও কয়েক হাজার সেনাকে পাঠিয়েছেন ইউক্রেনের কমান্ডাররা।

তবে ওলেহ ঝানোভ নামে ইউক্রেনের এক সেনা বিশ্লেষক জানিয়েছেন, বাখমুতে আরও সেনা পাঠানো হয়েছে মূলত ‘সময়ক্ষেপণের’ জন্য। কারণ রুশ বাহিনীকে আটকে রেখে বাখমুত থেকে ১৫ কিলোমিটার পশ্চিমের অঞ্চল চাসিভ ইয়ারের একটি পাহাড়ে ইউক্রেনীয় সেনাদের ফায়ারিং লাইন শক্তিশালী করা হবে।ঝানোভ আরও জানিয়েছেন, বাখমুত থেকে ইউক্রেনীয় সেনারা সরে গেলেও যুদ্ধের মোড় ঘুরে যাওয়ার মতো কিছু হবে না।এ সেনা বিশ্লেষক জানিয়েছেন, বর্তমানে বাখমুতের রাস্তাঘাট, সেনা অবস্থানসহ সব কিছু রুশ সেনাদের ফায়ারিং দূরত্বের মধ্যে রয়েছে। এছাড়া শহরটি প্রায় ধসিয়ে দিয়েছে রুশ বাহিনী। ফলে এখানে থেকে আপাতত কোনও লাভ নেই।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ