বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০১:৪৩ অপরাহ্ন

তিন দফা দাবিতে জাবির প্রশাসনিক ভবন অবরোধ

প্রতিনিধির / ১৮৫ বার
আপডেট : রবিবার, ৫ মার্চ, ২০২৩
তিন দফা দাবিতে জাবির প্রশাসনিক ভবন অবরোধ
তিন দফা দাবিতে জাবির প্রশাসনিক ভবন অবরোধ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) তিন দফা দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন অবরোধ কর্মসূচি শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। পরে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. নূরুল আলমের আশ্বাসে অবরোধ প্রত্যাহার করেন তারা।

রবিবার (৫ মার্চ) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে অবরোধ প্রত্যাহার করেন শিক্ষার্থীরা। এর আগে সকাল ৮টায় তিন দফা দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন অবরোধ কর্মসূচি শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।পরে সকাল ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান অবরোধস্থলে আসেন। এ সময় তিনি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন ও অবরোধ প্রত্যাহারের অনুরোধ করেন। তবে অবরোধ চালিয়ে যান শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হলো- গণরুম-মিনি গণরুম উচ্ছেদ করে সব বৈধ ও নিয়মিত শিক্ষার্থীর পড়ার টেবিলসহ সিট নিশ্চিত করা, অবিলম্বে সব নতুন হল খুলে দিয়ে কৃত্রিম আবাসন সংকটের অবসান করা, হলে আসন বণ্টন ব্যবস্থাপনার সম্পূর্ণ দায়িত্ব প্রশাসনকে নেওয়া।সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. নূরুল আলম, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক শেখ মনজুরুল হক, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক রাশেদা আখতার আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের কাছে আসেন। পরে উপাচার্য দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে অবরোধ প্রত্যাহার করেন শিক্ষার্থীরা।

অবরোধ প্রত্যাহারের বিষয়ে জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সৌমিক বাগচি বলেন, ‘উপাচার্য আমাদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে তারা আমাদের দাবি মেনে নেবেন। উপাচার্যের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাসে আমরা অবরোধ প্রত্যাহার করলাম।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. নূরুল আলম বলেন, ‘আগামীকালের মধ্যে প্রভোস্ট কমিটির মিটিং ডেকে গণরুম বিলুপ্তির বিষয়ে একটি কমিটি গঠন করব। কমিটি হল সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে সংকট সমাধানের জন্য কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে এই কমিটি গণরুম বিলুপ্তির ব্যাপারে দৃশ্যমান রোডম্যাপ তৈরি ও বাস্তবায়নে উদ্যোগ নেবে।’এর আগে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি গণরুম সংস্কৃতি বাতিল করে শিক্ষার্থীদের বৈধ সিট নিশ্চিত করাসহ চার দফা দাবিতে মশাল মিছিল ও সমাবেশ করেন প্রগতিশীল ছাত্রসংগঠনের নেতা-কর্মীরা। সমাবেশে বক্তারা গণরুম সংস্কৃতি বাতিল করে প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের আবাসিক হলে বৈধ সিট দেওয়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে ১ মার্চ পর্যন্ত আল্টিমেটাম দেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ