শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০২:৫৩ পূর্বাহ্ন

৩৫ ঊর্ধ্ব নিবন্ধনধারীদের সুপারিশ বিবেচনার সুযোগ নেই: এনটিআরসিএ

প্রতিনিধির / ১৮২ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৯ মার্চ, ২০২৩
৩৫ ঊর্ধ্ব নিবন্ধনধারীদের সুপারিশ বিবেচনার সুযোগ নেই: এনটিআরসিএ
৩৫ ঊর্ধ্ব নিবন্ধনধারীদের সুপারিশ বিবেচনার সুযোগ নেই: এনটিআরসিএ৩৫ ঊর্ধ্ব নিবন্ধনধারীদের সুপারিশ বিবেচনার সুযোগ নেই: এনটিআরসিএ

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক নিয়োগে ৩৫ ঊর্ধ্ব নিবন্ধনধারীদের আবেদন বিবেচনায় নেওয়ার জন্য আবেদন করেছেন অনেক চাকরিপ্রত্যাশী। তবে তাদের এ আবেদন আমলে নেওয়ার সুযোগ নেই বলে জানিয়েছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)।

বৃহস্পতিবার (৯ মার্চ) সংস্থাটির সচিব মো. ওবায়দুর রহমান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।বিজ্ঞপ্তিতে এনটিআরসিএ জানিয়েছে, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা অনুযায়ী শিক্ষক কর্মচারীদের চাকরিতে প্রথম প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়সসীমা ৩৫ বছর। কিন্তু ৩৫ বছর ঊর্ধ্ব কিছু নিবন্ধন সনদধারী প্রার্থী নিয়োগ আবেদনের সুযোগ চেয়েএ নটিআরসিএ বরাবর আবেদন করেছেন।

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ এর ১১.৬ অনুচ্ছেদ, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান (মাদরাসা) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ এর ১১.৬ অনুচ্ছেদে নির্দেশনা রয়েছে। এছাড়াও বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান (ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ এর ১৪.৬ অনুচ্ছেদে বর্ণিত বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক পদে আবেদনের সর্ব্বোচ্চ বয়সসীমা ৩৫ বছর নির্ধারণ করা হয়।

এসব অনুচ্ছেদে বর্ণিত বয়সসীমার বিরুদ্ধে নিবন্ধনধারী প্রার্থীরা হাইকোর্ট বিভাগে রিট মামলা নং- ১৩৯/২০১৯ দায়ের করেন। ওই মামলায় ২০১৯ সালের ২২ মে আদেশ হয়, যে তারিখে সরকার বয়সসীমা নির্ধারণ করেছে তার পূর্বে যারা নিবন্ধন সনদ অর্জন করেছেন তাদের জন্য বয়সসীমা প্রযোজ্য হবে না। ওই তারিখের পরে যারা নিবন্ধন সনদ অর্জন করেছেন তাদের জন্য বয়সসীমা প্রযোজ্য হবে।ওই রায়ের বিরুদ্ধে এনটিআরসিএ’র পক্ষ থেকে সুপ্রিম কোর্টে সিভিল পিটিশন ফর লিভ টু আপিল মামলা নং ৩৯০০/২০১৯ দায়ের করা হয়। সিভিল পিটিশন ফর লিভ টু আপিল মামলা ৩৯০০/২০১৯ এর ২০২০ সালের ১১ অক্টোবরের রায়ে হাইকোর্টের রিট পিটিশন নং- ১৩৯/২০১৯ এর ২২/০৫/২০১৯ তারিখের রায় রদ-রহিত করা হয়।

সিভিল পিটিশন ফর লিভ টু আপিলের রায়ের বিষয়ে অধিকতর স্পষ্ট হওয়ার জন্য এনটিআরসিএ’র পক্ষ থেকে আইন ও বিচার বিভাগের মতামত চাওয়া হয়। পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্টে একটি রিভিউ মামলা ৫৪/২০২২ দায়ের করা হয়। এরই মধ্যে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগের মতামত পাঠানো হয়েছে। তাতে জানানো হয়, আপিল বিভাগ হাইকোর্ট বিভাগ কর্তৃক প্রদত্ত রিট পিটিশন নং- ১৩৯/২০১৯ এর ‘অপারেটিভ পার্ট’ কর্তন করে রায় প্রদান করেন। কাজেই, আপিল বিভাগের রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে রিট পিটিশন নং- ১৩৯/২০১৯-এর ২০১৯ সালের ২২ মে তারিখের রায়ের সামগ্রিক কার্যকারিতা রহিত করা হয়েছে। আপিল বিভাগের রায়ে হাইকোর্ট বিভাগের প্রদত্ত নির্দেশনা বহাল নেই এবং বর্তমানে বিদ্যমান নীতিমালার আলোকে ৩৫ বছর ঊর্ধ্ব বয়সীদের চাকরিতে প্রবেশের সুযোগ নেই। ফলে ৩৫ ঊর্ধ্ব বয়সসীমার নিয়োগ প্রত্যাশীদের আবেদন ও নিয়োগ সুপারিশ বিবেচনার সুযোগ নেই বলে উল্লেখ করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ