বুধবার, ২৬ জুন ২০২৪, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন

টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে শাশুড়ির সামনে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা

প্রতিনিধির / ৮৬ বার
আপডেট : রবিবার, ৯ এপ্রিল, ২০২৩
টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে শাশুড়ির সামনে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা
টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে শাশুড়ির সামনে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা

টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে শাশুড়ির সামনে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করেছেন মিনজু মিয়া নামে এক ব্যক্তি।শনিবার (০৯ এপ্রিল) দিনগত রাত ২টার দিকে দেলদুয়ার উপজেলার ডুবাইল ইউনিয়নের কুপাখী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, কুপাখী গ্রামের মৃত আজগর মিয়ার ছেলে মিনজু মিয়ার সঙ্গে প্রায় ২৫ বছর আগে মির্জাপুর উপজেলার পাকুল্যা গ্রামের মৃত সমেজ উদ্দিনের মেয়ে সুমিতার (৩৮) বিয়ে হয়। দীর্ঘ সংসার জীবনে তাদের দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। সম্প্রতি মিনজু মিয়া শ্বশুর বাড়ির ওয়ারিশের সম্পত্তি নিতে স্ত্রীকে চাপ দেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য সৃষ্টি হয়। কয়েকদিন আগে স্ত্রীকে এ নিয়ে মারধর করে বাড়ি থেকে তাড়িয়েও দিয়েছিলেন মিনজু।

তখন সুমিতা বোনের বাড়ি মির্জাপুর উপজেলা মহেড়া গ্রামে আশ্রয় নিয়েছিলেন। শনিবার কৌশলে ভগ্নিপতি আমির হোসেনের মাধ্যমে মোবাইল ফোনে স্ত্রীকে বাড়িতে আসতে বলেন মিনজু। সরলমনে সুমিতা তার বোন ববিতা ও মা হালিমাকে সঙ্গে নিয়ে শনিবার স্বামীর বাড়িতে আসেন। রাত ২টার দিকে আবার সম্পত্তি নিয়ে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে শাশুড়ি ও শ্যালিকার সামনে মিনজু ধারালো দা’ দিয়ে কুপিয়ে সুমিতাকে হত্যা করেন। এসময় বাধা দিতে গিয়ে সুমিতার মা হালিমা ও বোন ববিতা আহত হন।

সুমিতার মা হালিমা বেগম বলেন, মেয়েকে আমার সামনেই কুপিয়ে হত্যা করল। আমি কিছুই করতে পারলাম না। আমার মেয়ের চিৎকারে কেউ এগিয়ে এলো না। ওয়ারিশের সামান্য কিছু টাকার জন্য মিনজু আমাদের তিনজনকেই হত্যা করতে চেয়েছিল।
দেলদুয়ার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছির উদ্দিন মৃধা বলেন, এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। ঘাতক মিনজুকে আটক করা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে তাকে আদালতে পাঠানো হচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ