বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০৫:৪১ অপরাহ্ন

৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তিতে ভুল সুপারিশ: ভোগান্তিতে ধর্মীয় শিক্ষকরা

প্রতিনিধির / ২২০ বার
আপডেট : বুধবার, ১০ মে, ২০২৩
৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তিতে ভুল সুপারিশ: ভোগান্তিতে ধর্মীয় শিক্ষকরা
৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তিতে ভুল সুপারিশ: ভোগান্তিতে ধর্মীয় শিক্ষকরা

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) কর্তৃক সহকারী শিক্ষক (ধর্ম) স্কুলে নির্বাচিত না করে অন্য পদে তথা ‘সহকারী মৌলভী’ মাদ্রাসায় নির্বাচন করায় বিপাকে শিক্ষকরা।

সম্প্রতি ৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তিতে এমনটা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সুপারিশপ্রাপ্ত শিক্ষকরা।তারা বলছেন, শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় ইসলাম শিক্ষা (ধর্ম) স্কুল বিষয়ের সনদধারী। আমরা ৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তিতে আবেদন করি। যার ফলে আমাদের গত ১২ মার্চ প্রাথমিক সুপারিশ মাদ্রাসায় করা হয়েছে।জানা যায়, গণবিজ্ঞপ্তিতে আবেদনের ক্ষেত্রে ৪০টি স্কুল চয়েস দেওয়ার পর ‘হ্যাঁ’ (Yes) নামে অপশনে ক্লিক করতে হয়। এতে দেশের যেকোনো প্রান্তে চাকরি করতে তারা বাধ্য থাকবেন।

শিক্ষকরা বলছেন, আমরা ‘হ্যাঁ’ (Yes) অপশনে ক্লিক করার কারণে আমাদের পছন্দকৃত তালিকার বাইরে থেকে আমাদেরকে ‘সহকারী মৌলভী মাদ্রাসায়’ নির্বাচিত করা হয়েছে। কিন্তু আমাদের সনদ অনুযায়ী শুধু সহকারী শিক্ষক (ধর্ম) স্কুলে হওয়ার যোগ্যতা রাখি।এটি নিয়ে গত মঙ্গলবার এনটিআরসিএ চেয়ারম্যান বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন ভুক্তভোগী শিক্ষকরা। স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, ১৩ তম নিবন্ধন থেকে সনদপত্রে সহকারী শিক্ষক (ধর্ম) স্কুল ও সহকারী মৌলভী মাদ্রাসা পৃথক হয়ে যায়। কিন্তু পূর্বে একই সনদ দিয়ে স্কুল ও মাদ্রাসায় শিক্ষক হওয়া যেত। ইতিমধ্যে আমরা এনটিআরসিএ এর নির্দেশনা অনুযায়ী অনলাইন পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম পূরণ করেছি।

শিক্ষকদের দাবি, নির্বাচিত পোস্ট ও প্রতিষ্ঠান পুনঃমূল্যায়ন করে তাদের সঠিক পোস্ট ও সঠিক প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ প্রদান করতে হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ