বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৭:৩৪ পূর্বাহ্ন

সেন্ট মার্টিনের লোকজনকে সরানো হচ্ছে দ্বীপের আশ্রয়কেন্দ্রে

প্রতিনিধির / ১১৪ বার
আপডেট : শনিবার, ১৩ মে, ২০২৩
সেন্ট মার্টিনের লোকজনকে সরানো হচ্ছে দ্বীপের আশ্রয়কেন্দ্রে
সেন্ট মার্টিনের লোকজনকে সরানো হচ্ছে দ্বীপের আশ্রয়কেন্দ্রে

অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় মোখার প্রভাব থেকে জানমাল রক্ষায় সেন্টমার্টিনে লোকজন আশ্রয়কেন্দ্রে যেতে শুরু করেছে। তাদের নিরাপদে আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে যেতে কাজ করছে সিপিপি ও রেডক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবকরা।

শনিবার (১৩ মে) বিকেল সাড়ে ৪টায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য খোরশেদ আলম।তিনি বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড় মোখার প্রভাবে সমুদ্রে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অফিস। ইতিমধ্যে বাতাসের গতিবেগ বাড়তে শুরু করেছে। তাই আমরা সেন্টমার্টিনের বিভিন্ন গ্রামের লোকজনকে আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে যাচ্ছি। এখানে দেড় শতাধিক স্বেচ্ছাসেবক রয়েছে। আমি নিজে বাড়ি বাড়ি গিয়ে লোকজনকে নিরাপদে নিয়ে আসছি।’

জেলা প্রশাসক মুহম্মদ শাহীন ইমরান বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড় মোখা সেন্টমার্টিনে আঘাত হানার সম্ভাবনা রয়েছে। নেভি, কোস্টগার্ড, পুলিশসহ সেন্টমার্টিনে ৩৭টি সরকারি স্থাপনা রয়েছে। সেখানকার সরকারি স্থাপনাগুলো সাইক্লোন শেল্টার হিসেবে ব্যবহারের জন্য বলা হয়েছে।’এছাড়া, সেন্টমার্টিনের সকল হোটেল-মোটেল-রিসোর্ট আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান।তিনি বলেন, ‘মোখার প্রভাবে বাতাস বেড়ে যাওয়ায় সেন্টমার্টিনের বাসিন্দাদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। এখানকার প্রায় ২ শতাধিক হোটেল-মোটেল-রিসোর্ট আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। লোকজন জানমাল রক্ষায় এসব স্থাপনায় আশ্রয় নিতে পারবেন।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ