বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০৬:১২ অপরাহ্ন

আগামীকাল থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চালানো হবে মেট্রো ট্রেন

প্রতিনিধির / ২৩৪ বার
আপডেট : মঙ্গলবার, ৩০ মে, ২০২৩
আগামীকাল থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চালানো হবে মেট্রো ট্রেন
আগামীকাল থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চালানো হবে মেট্রো ট্রেন

রাজধানীতে মেট্রো ট্রেন চলাচলের সময় বাড়ল। এত দিন উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মোট ৯টি স্টেশনে সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত মেট্রো চলাচল করছে। যদিও শুরুতে এই পথে ট্রেন চলত দুপুর ১২টা পর্যন্ত। আগামীকাল বুধবার থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চালানো হবে মেট্রো ট্রেন।

মূলত পর্যায়ক্রমে মেট্রো ট্রেন চলাচলের সময় বাড়ানো হচ্ছে। আগামী জুলাইয়ে রাত ১২টা পর্যন্ত মেট্রো চালানোর পরিকল্পনা রয়েছে। সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ধাপে ধাপে ট্রেন পরিচালনার সময় বাড়ানো হচ্ছে।মেট্রো রেল পরিচালনাকারী সরকারি প্রতিষ্ঠান ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন সিদ্দিক এ তথ্য জানান।

ডিএমটিসিএলের কর্মপরিকল্পনা অনুযায়ী, সকাল ৮টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত ‘পিক আওয়ার’ হিসেবে বিবেচনা করে ১০ মিনিট পর পর দুই প্রান্তের স্টেশন থেকে ট্রেন ছেড়ে যাবে। সে ক্ষেত্রে স্বাভাবিকভাবেই মাঝের স্টেশনগুলোতে ১০ মিনিট পর পর যাত্রীদের জন্য ট্রেন হাজির হবে।আবার সকাল ১১টা এক মিনিট থেকে ১৫ মিনিটের ব্যবধানে মেট্রো ছাড়বে বিকেল ৩টা পর্যন্ত। পরবর্তী তিন ঘণ্টা আবারও ১০ মিনিট পর পর স্টেশন ছাড়বে মেট্রো।

এদিকে বর্তমানে মেট্রোর সাপ্তাহিক ছুটি মঙ্গলবার হলেও নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণ ও আনুষঙ্গিক কার্যক্রমের জন্য শুক্রবার বন্ধ থাকবে। যদিও শুক্রবার উৎসুক যাত্রী চাপ মেট্রোতে বেশি থাকলেও প্রকৃত যাত্রী থাকে না। মেট্রোতে দর্শনার্থীর চেয়ে এখন যাত্রী বাড়তে শুরু করেছে। তাই যাত্রীর সুবিধা বিবেচনা করে অফিস বন্ধের দিন শুক্রবার বন্ধ থাকবে মেট্রো ট্রেন চলাচল।৩৩ হাজার ৪৭৩ কোটি টাকা খরচ করে রাজধানীর উত্তরা থেকে কমলাপুর পর্যন্ত ২১.২৬ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের প্রথম মেট্রো রেলের নির্মাণকাজ এখনো চলমান। প্রকল্পটি ২০১২ সালে হাতে নেয় সরকার। শুরুতে প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয় ২১ হাজার ৯৮৫ কোটি টাকা।

এর মধ্যে ১৬ হাজার ৫৯৫ কোটি টাকার জোগান দিচ্ছে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা), বাকি পাঁচ হাজার ৩৯০ কোটি টাকার জোগান দিচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। তবে দ্বিতীয় সংশোধনীতে মতিঝিল থেকে বাড়িয়ে মেট্রো রেল কমলাপুর পর্যন্ত নিয়ে যাওয়ায় ব্যয় বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৩ হাজার ৪৭১ কোটি টাকা।গত বছরের ২৮ ডিসেম্বর এই পথের প্রথমাংশ উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত ১১.৭৩ কিলোমিটার চালু করা হয়। দ্বিতীয় অংশ আগারগাঁও থেকে মতিঝিল আগামী ডিসেম্বরে চালুর পরিকল্পনা রয়েছে। আর মতিঝিল থেকে কমলাপুর পর্যন্ত বর্ধিতাংশ ২০২৫ সালে চালুর লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

ডিএমটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন সিদ্দিক বলেন, ‘আগারগাঁও থেকে মতিঝিল পর্যন্ত অংশে আগামী ডিসেম্বরের আগেই যাত্রীবাহী মেট্রো রেল চলবে। সেভাবেই প্রস্তুতি নিতে এই অংশে জুলাই মাসে পরীক্ষামূলক চলাচল শুরু হবে। আগারগাঁও থেকে মতিঝিল অংশের স্টেশনগুলোও ধাপে ধাপে চালু হবে। একযোগে সব স্টেশন যদি চালু নাও করা যায়, প্রথমে (উত্তরা-আগারগাঁও অংশ) আমরা যেভাবে চালু করেছিলাম সেভাবে চালু করা যেতে পারে।’এদিকে মে মাসে প্রকাশিত প্রকল্পের সর্বশেষ অগ্রগতির প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত সার্বিক গড় অগ্রগতি ৯৪.৪৩ শতাংশ। প্রথম পর্যায়ে নির্মাণের জন্য নির্ধারিত উত্তরা তৃতীয় পর্ব থেকে আগারগাঁও অংশের পূর্তকাজের অগ্রগতি ৯৯.৬০ শতাংশ।

দ্বিতীয় পর্যায়ে নির্মাণের জন্য নির্ধারিত আগারগাঁও থেকে মতিঝিল অংশের পূর্তকাজের অগ্রগতি ৯৩.৮৫ শতাংশ। মতিঝিল থেকে কমলাপুর পর্যন্ত কাজ হয়েছে ২.৩০ শতাংশ। ইলেকট্রিক্যাল ও মেকানিক্যাল সিস্টেম এবং রোলিং স্টক (রেলকোচ) ও ডিপো ইকুইপমেন্ট সংগ্রহ কাজের সমন্বিত অগ্রগতি ৮৯.৩৪ শতাংশ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ