বুধবার, ২৬ জুন ২০২৪, ০৪:৩৪ পূর্বাহ্ন

রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধে এ পর্যন্ত ৫০০ শিশুসহ নিহত ৯ হাজার বেসামরিক মানুষ

প্রতিনিধির / ২১২ বার
আপডেট : শনিবার, ৮ জুলাই, ২০২৩
রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধে এ পর্যন্ত ৫০০ শিশুসহ নিহত ৯ হাজার বেসামরিক মানুষ
রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধে এ পর্যন্ত ৫০০ শিশুসহ নিহত ৯ হাজার বেসামরিক মানুষ

২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২২ সালে রাশিয়া ইউক্রেন আক্রমণ করে। এরপর এই যুদ্ধে এখন পর্যন্ত ৫০০ মিশুসহ ৯ হাজারের এরও বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। এমনটাই জানিয়েছে জাতিসংঘ বলেছে। ইউক্রেনে জাতিসংঘের মানবাধিকার মনিটরিং মিশন (এইচেএমএমইউ) শুক্রবার এক বিবৃতিতে, ইউক্রেনে যুদ্ধের ভয়াবহ আবস্থার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে এবং নিশ্চিত করতে সক্ষম হয়েছে যে, সংঘর্ষে এ পর্যন্ত ৯ হাজার বেসামরিক মানুষ নিহত হয়েছে।

তবে এও সতর্ক করেছে, প্রকৃত সংখ্যা আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত হওয়া মৃত্যুর সংখ্যার চেয়ে অনেক বেশি হতে পারে। এইচআরএমএমইউ-এর ডেপুটি হেড নোয়েল ক্যালহাউন আক্রমণ শুরুর ৫০০তম দিন উপলক্ষে এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘আজ আমরা যুদ্ধের আরেকটি ভয়ঙ্কর মাইলফলক চিহ্নিত করছি, যা ইউক্রেনের বেসামরিক নাগরিকদের ওপর ভয়ঙ্করভাবে চালিয়ে যাওয়া হয়েছে।’এই বছর ইউক্রেনে হতাহতের সংখ্যা ২০২২ সালের তুলনায় গড়ে কম ছিল। এই সংখ্যাটি মে এবং জুন মাসে আবার বাড়তে শুরু করেছে বলে জানা গেছ।

২৭ জুন পূর্ব ইউক্রেনের ক্রামতোর্স্কে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় চার শিশুসহ ১৩জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়। এ ছাড়া ইউক্রেনের পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর লভিভ থেকে অনেক দূরে, বৃহস্পতিবার ভোরে একটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ১০জন নিহত এবং আরো ৩৭ জন আহত হয়েছিল। ওই অঞ্চলের মেয়র এটিকে আক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকে বেসামরিক অবকাঠামোতে সবচেয়ে বড় আক্রমণ বলে অভিহিত করেছেন।জাতিসংঘ বলেছে, ওই আক্রমণে একটি ঐতিহাসিক ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল।
ইউক্রেনে জাতিসংঘের মনিটরিং মিশন আরো উল্লেখ করেছে, পূর্ব ইউক্রেনে গত আট বছরের শত্রুতার তুলনায় গত ৫০০ দিনে তিনগুণ বেশি বেসামরিক মানুষ নিহত হয়েছে। যখন রুশ সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীরা ক্রিমিয়া এবং অন্যান্য অঞ্চল দখল করেছিল।

রাশিয়া নিয়মিতভাবে ইউক্রেনে বিমান হামলা চালিয়েছে। নির্বিচারে চালানো হয় আর্টিলারি এবং ক্ষেপণাস্ত্র হামলা। যা বিশেষ করে বেসামরিকদের জন্য মারাত্মক।রাশিয়া বিভিন্ন বেসামরিক অবকাঠামো এবং সরবরাহ লাইনের ওপর আক্রমণ করেছে। ফলে বেসামরিক মানুষ বিদ্যুৎ ও পানি থেকে বঞ্চিত হয়েছে। বুচা এবং মারিউপোল শহরগুলো গত বছর রাশিয়ান নৃশংসতার শিকার হয়েছিল। সেখানে গণহত্যার প্রতিবেদন এবং চিত্রগুলো বিশ্বকে হতবাক করেছিল।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ