রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৮:২১ অপরাহ্ন
/ লাইফ স্টাইল
শীতকালে ঠোঁট ফাটে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে কিনা সন্দেহ। ফাটা ঠোঁট নিয়ে অনেকেই অস্বস্তিতে পড়েন।অনেকের আবার সারা বছরই ঠোঁট খসখসে থাকার সমস্যা হয়। সাধারণ কিছু নিয়ম মেনে চললেই বিস্তারিত...
শীতকালে উৎসব, নিমন্ত্রণে খাওয়াদাওয়া লেগেই থাকে। এ সময় খাওয়াদাওয়ার অনিয়মের কারণে অনেকের নানা শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়। সেক্ষেত্রে চিকিৎসক এবং পুষ্টিবিদ— সকলেই সুস্থ থাকতে যে খাবারগুলি খাওয়ার কথা বলে থাকেন,
শীতে মাথা ব্যথা অনেকেরই নিত্য সঙ্গী। তীব্র ঠাণ্ডা সঙ্গে মাইগ্রেনের যন্ত্রণা খুব ভোগাচ্ছে? জেনে নিন এ কষ্ট থেকে মুক্তি পাওয়ার ঘরোয়া কিছু উপায়: • প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমাতে হবে এবং
সাবান ব্যবহার করতে করতে পাতলা হয়ে গেলে বেশিরভাগ সময়ই তা ফেলে দেওয়া হয়। কিন্তু যদি জানেন যে ফেলে দেওয়া ওই সবানগুলো দিয়েই বানিয়ে ফেলতে পারবেন একটি বড় সাবান তাহলে নিশ্চই
শীতকালে সুস্থ থাকার জন্য আমরা অনেক ধরনের টোটকা প্রয়োগ করে থাকি। বিশেষ করে সর্দি-কাশির সমস্যা এড়ানোর জন্য দারুণ ভাবে কাজে লাগে এইসব ঘরোয়া টোটকা। শীতকালে ঘি খেলেও আপনি বেশ কিছু
অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস শরীরের মারাত্মক ক্ষতি করে। কখনো কখনো ডায়াবেটিস নিউরোপ্যাথি বা স্নায়ুরও ক্ষতি করে। ডায়াবেটিস-সম্পর্কিত নিউরোপ্যাথি হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ায়।ডায়াবেটিসে আক্রান্ত দুই-তৃতীয়াংশেরও বেশি রোগীদের নিউরোপ্যাথি সম্পর্কে ধারণা নেই। এর সবচেয়ে সাধারণ
বাঙালিরা সারাদিন যা কিছুই খান না কেন, ভাত ছাড়া বাঙালির যেন তৃপ্তিই মেটে না। তাইতো বলা হয় ‘মাছে-ভাতে বাঙালি’। কিন্তু অনেকে ওজন বাড়ার ভয়ে ভাত খাওয়া বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা
যেকোনো শিশুর বিকাশের সঙ্গে সঙ্গে কিছু কিছু আচরণগত সমস্যা দেখা দিতে পারে। এ সময় অভিভাবকদের ধৈর্য না হারিয়ে বরং একটু বেশি সচেতন হতে হবে।এ রচনায় শিশুদের এমন কিছু আচরণগত সমস্যা