বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০২:৪৮ অপরাহ্ন

পানির বোতলে থাকে টয়লেটের চেয়েও বেশি জীবাণু: গবেষণা

প্রতিনিধির / ৩১১ বার
আপডেট : সোমবার, ২৭ মার্চ, ২০২৩
পানির বোতলে থাকে টয়লেটের চেয়েও বেশি জীবাণু: গবেষণা
পানির বোতলে থাকে টয়লেটের চেয়েও বেশি জীবাণু: গবেষণা

করোনার পর সবাই পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে কমবেশি সচেতন হয়েছেন। বারবার হাত ধোয়ার ব্যাপার হোক বা বাইরের ফল, সবজি বা খাবার খাওয়া হোক, সব কিছুতেই পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখার চেষ্টা করেন কমবেশি সবাই।অবশ্যই এই অভ্যাস আপনাকে লাখ লাখ বিপজ্জনক ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া থেকে রক্ষা করে, তবুও আপনি নিরাপদ নন।

একটি গবেষণা অনুযায়ী, আমরা প্রতিদিন ঘরে যেসব পানির বোতল ব্যবহার করি তা টয়লেট সিটের থেকেও বেশি নোংরা। এতে টয়লেট সিটের চেয়ে ৪০ হাজার গুণ বেশি ব্যাকটেরিয়া পাওয়া যা, যা অজান্তেই বাড়াচ্ছে বিভিন্ন রোগের ঝুঁকি।আসলে এগুলো লুকানো ব্যাকটেরিয়া, যা দৃশ্যমান নয়। তবে তা আমাদের স্বাস্থ্যের ওপর গভীর প্রভাব ফেলে ও কঠিন রোগে আক্রান্ত করে তোলে।

গবেষণা বলছে, পানির বোতলে দু’ধরনের ব্যাকটেরিয়া থাকে। আমেরিকার ওয়াটার পিউরিফায়ার অ্যান্ড ট্রিটমেন্ট কোম্পানি ‘ওয়াটারফিল্টারগুরু.কম’ পুনঃব্যবহারযোগ্য পানির বোতলের সব অংশ তিনবার পরীক্ষা করেছে।ফলাফলে দেখা গেছে, তাদের মধ্যে গ্রাম নেগেটিভ রড ও ব্যাসিলাস ব্যাকটেরিয়া আছে। এই ব্যাকটেরিয়া খুব মাইক্রোস্কোপিক বা ছোট, যা সহজে দৃশ্যমান হয় না ও গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল সমস্যা সৃষ্টি করে।

কেন এই ব্যাকটেরিয়া এত বিপজ্জনক?

গ্রাম নেগেটিভ ব্যাকটেরিয়া ক্ষত, নিউমোনিয়া ও সার্জিক্যাল সাইটে সংক্রমণের প্রধান কারণ। এগুলো গ্রাম-পজিটিভ ব্যাকটেরিয়ার চেয়ে বেশি প্রতিরোধী, যা অন্য অনেক ধরণের সংক্রমণ ঘটার ঝুঁকি বাড়ায়।এগুলো এতটাই বিপজ্জনক যে, তারা অ্যান্টিবায়োটিকের প্রভাবকেও ধ্বংস করতে পারে। যেখানে ব্যাসিলাস পেট সংক্রান্ত সমস্যার জন্য দায়ী। এর কারণে পেটে ইনফেকশন, পেটে ব্যথা ও ফুড পয়জনিংয়ের মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে।

এসব জিনিসও ব্যাকটেরিয়ার আবাসস্থল

পানির বোতল ছাড়া কিচেন সিঙ্ক, ল্যাপটপ, রিমোট, মোবাইল ও টিভিকেও ব্যাকটেরিয়ার আবাস হিসেবে ধরা হয়েছে।গবেষকরা যখন পানির বোতলকে গৃহস্থালির জিনিসের সঙ্গে তুলনা করেন, তখন তারা দেখতে পান পানির বোতলগুলোতে একটি সিঙ্কের চেয়ে দ্বিগুণ ব্যাকটেরিয়া, কম্পিউটার মাউসের ৪ গুণ ও পোষা প্রাণীর পানীয়ের বাটির চেয়ে ১৪ গুণ বেশি ব্যাকটেরিয়া আছে।এগুলো স্পর্শ করার পরে, আপনাকে অবশ্যই সাবান বা স্যানিটাইজার দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলতে হবে।

এই ফলাফল প্রকাশের পর বিশেষজ্ঞরা সুপারিশ করেছেন, পানির বোতল দিনে অন্তত একবার সাবান পানিতে ধুতে হবে ও সপ্তাহে একবার পরিষ্কার করা উচিত।বিশেষ করে যখন আপনি অসুস্থ থাকেন, তখন যে বোতলে পানি পান করবেন সেটি অবশ্যই ভালো করে পরিষ্কার করতে হবে।

সুরক্ষা পদ্ধতি

১. এই বিপজ্জনক ব্যাকটেরিয়া এড়াতে আপনি প্লাস্টিকের পরিবর্তে কাচের বোতল ব্যবহার করতে পারেন।

২. ব্যাকটেরিয়া মারার জন্য কমপক্ষে ২০ মিনিট গরম পানিতে পানির বোতল রেখে তারপর ধুয়ে ফেলুন।

৩. এছাড়া পানি পরিষ্কার করতে ফ্রিজিং ট্যাবলেট ব্যবহার করতে পারেন। এ কারণে পানিতে ব্যাকটেরিয়া জন্ম নেবে না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ